শিরোনাম
২০২৩-২৪ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট পাস দিল্লিতে শেখ হাসিনার সঙ্গে সোনিয়া গান্ধীর সাক্ষাৎ বিআরটিসির ঈদ স্পেশাল সার্ভিস শুরু বৃহস্পতিবার সৌদি পৌঁছেছেন ৭৬ হাজার ৩২৫ হজযাত্রী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সব দলকে আমন্ত্রণ জানাবে আওয়ামী লীগ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ৩ অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন ট্রেনের ৩০০ যাত্রী বেনাপোলে দুর্বৃত্তের কোপে গুরুতর আহত রাজস্ব কর্মকর্তা বেনজীরের রিসোর্ট নিয়ন্ত্রণে নিলো প্রশাসন নরেন্দ্র মোদিকে নতুন সরকার গঠনের অনুমতি দিলেন রাষ্ট্রপতি নয়াদিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী গাজীপুরে বাস-অটোরিকশা মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২ দৈনিক আমার সংবাদের এক যুগপূর্তি অনুষ্ঠিত ৫১২ আসনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা এশিয়ায় ইন্টারনেট ব্যবহারে পিছিয়ে বাংলাদেশের নারীরা
বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ১১:৫৩ অপরাহ্ন

অশ্বিনের সামনে কপিল দেবকে টপকানোর সুযোগ

স্পোর্টস ডেস্ক / ১৭৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ২ মার্চ, ২০২২

বয়সটা যে শুধু মাত্র একটা সংখ্যা তা একাধিক ক্রীড়াবিদ একাধিকবার প্রমাণ করেছেন। ক্রিকেটার হোক বা ফুটবলার কিংবা টেনিস প্লেয়ার, অনেকেই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, বয়স শুধুমাত্র একটা সংখ্যা। ৩৫ বছর বয়সেও শেখার ইচ্ছে এতটুকুও কমেনি ভারতের সিনিয়র অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনের।

বিরাট কোহলির ক্যারিয়ারের শততম টেস্টে অশ্বিনের কাছে সুবর্ণ সুযোগ থাকছে ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার কপিল দেবকে টপকে যাওয়ার। কপিলকে টপকে যাওয়ার হাতছানি রইলেও, এখনও অশ্বিন নিজের ক্রিকেটের উন্নতি করতে চান। অশ্বিন যদি দিমুখ করুণারত্নেদের বিরুদ্ধে আসন্ন টেস্ট সিরিজে কপিল দেবকে টপকে যান, তা হলে একটি মিলও হবে কপিল-অশ্বিনের মধ্যে।
মোহালিতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আসন্ন টেস্ট সিরিজে কপিল দেবকে টপকে গেলে কোন মিল হবে কপিল-অশ্বিনের মধ্যে? ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়ক অধিনায়ক কপিল দেব ১৯৯৪ সালে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার রিচার্ড হ্যাডলির ৪৩১তম টেস্ট উইকেটের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছিলেন। সেই টেস্ট সিরিজে ভারতের প্রতিপক্ষ ছিল শ্রীলঙ্কা।

১৯৯৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচে কপিল দেব হারশান তিলকরত্নের উইকেট নিয়ে ওই সময় হেডলির ৪৩১ টেস্ট উইকেটের রেকর্ড ভেঙেছিলেন। এরপর ৪৩৪ উইকেট নিয়ে তিনি টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের সামনেও প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। কপিল দেবকে লঙ্কানদের বিরুদ্ধেই ছাপিয়ে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে অশ্বিনের।

বলের পাশাপাশি ব্যাটিংয়েও বেশ নজরকাড়া পারফরম্যান্স অশ্বিনের। টেস্ট ক্রিকেটে তিন হাজার রান থেকে আর ১৬৬ রান দূরে রয়েছেন অশ্বিন। রানের দিক থেকে এখনই তিনি টপকে গিয়েছেন ফারুখ ইঞ্জিনিয়ার, সৈয়দ কিরমানি ও মনসুর আলি খান পৌতিদিকে। লাল বলের ক্রিকেটে অশ্বিনের নামের পাশে রয়েছে ২৮৪৪ রান।

ক্রিকেট ক্যারিয়ারে বহু কিংবদন্তিদের উইকেট ঝুলিতে ভরেছেন অশ্বিন। সেই তালিকায় রয়েছে আইপিএলে তার নতুন দল রাজস্থান রয়্যালসের ডিরেক্টর অব ক্রিকেট কুমারা সাঙ্গাকারাও। রাজস্থান রয়্যালসের তরফ থেকে শেয়ার করা এক ভিডিওবার্তায় অশ্বিন বলেন, “সাঙ্গা একজন দারুণ মানুষ। যখনই আমি তার সঙ্গে কথা বলেছি, দারুণ লেগেছে। প্রথমবার তার সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল শ্রীলঙ্কা সফরে। মানুষ হিসেবে সে দুর্দান্ত এবং বেশ বুদ্ধিমানও। তাই, আমি তার সঙ্গে আবার যোগাযোগের অপেক্ষায় রয়েছি এবং প্রচুর ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা করার কথা ভেবেছি।”

এবারের মেগা নিলামে অশ্বিনকে ৫ কোটি টাকা দিয়ে কিনেছে রাজস্থান। ২০১৫ সালে ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানান সঙ্গাকারা। কাকতালীয়ভাবে, অশ্বিন তাকে উভয় ইনিংসেই আউট করেছিলেন। এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমি কয়েকটি টেস্ট ম্যাচ খেলেছি, কয়েকবার তাকে আউট করেছি। এটা বলা নিরাপদ যে সাঙ্গা তখন অবসর নিয়েছিলেন কারণ, আপনি জানেন যে এই সকল বড় ব্যাটাররা যখন একটি নির্দিষ্ট বোলারের কাছে আউট হয়, তারা পরিকল্পনা করে এবং তারা আপনার উপর আধিপত্য বিস্তার করার চেষ্টা করে। কিন্তু আমি, খুশি ছিলাম যে আমি তাকে আউট করেছি। তবে খুশিই হয়েছিলাম যে তার অবসর ম্যাচের অংশ ছিলাম আমি এবং তার উইকেট পেয়েছিলাম। ভিতর ভিতর আমি শান্ত ছিলাম যে, সে আর সামনে এসে আর আমার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে না।”


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ